চেয়ারম্যান-এর বাণী


 
জনাব হাসান মাহমুদ রাজা
চেয়ারম্যান

বিশিষ্ট স্টেকহোল্ডারগণ, শুভাকাঙ্ক্ষী এবং ইউনাইটেড গ্রুপ পরিবারের প্রিয় সদস্যবৃন্দ,

আসসালামু আলাইকুম ওয়া রহমতুল্লাহ

আলহামদুলিল্লাহ। এই বছর আমরা ৩৮তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন করছি। এই শুভদিনে আমাদের বিশিষ্ট স্টেকহোল্ডারগণ, শুভাকাঙ্ক্ষী এবং ইউনাইটেড গ্রুপ পরিবারের প্রিয় সদস্যদের জানাই আমার আন্তরিক শুভেচ্ছা।

আপনারা জানেন, গত বছর ছিল আমাদের সংহতির বছর। আমরা আমাদের সমস্ত প্রকল্প, উদ্যোগ এবং কোম্পানীর জন্য উন্নত, বিকশিত এবং সর্বাধিক মান বৃদ্ধি নিশ্চিত করেছিলাম। প্রকৃতপক্ষে, সর্বশক্তিমানের করুণা ও আশীর্বাদ নিয়ে আমরা যা পরিকল্পনা করেছিলাম, তা আমরা অর্জন করতে পারি। নতুন উদ্যোগও ছিল।

পরিষ্কারভাবে, গ্রুপের আয়ের দিক থেকে আমাদের প্রধান চালিকাশক্তি ছিল 'বিদ্যুৎ উৎপাদন ও বিতরণ' এবং গত বছর আমরা এই ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্যভাবে মনোনিবেশ করেছি। আমাদের ইউনাইটেড আশুগঞ্জ এনার্জি লিঃ (ইউএইএল) ২০১৫ সালের মে মাসে বাণিজ্যিক কার্যক্রম শুরু করে 'এশিয়া পাওয়ার অ্যাওয়ার্ডস ২০১৫' তে ৩টি বিভাগে  পুরষ্কার জিতে বিশ্বখ্যাত স্বীকৃতি পেয়েছে: এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের বর্ষসেরা কম্বাইন্ড সাইকেল প্ল্যান্ট হিসেবে স্বর্ণপদক, বর্ষসেরা ফাস্ট ট্র্যাক বিদ্যুৎকেন্দ্র হিসেবে রৌপ্যপদক এবং বর্ষসেরা গ্যাসভিত্তিক বিদ্যুৎ প্রকল্প হিসেবে ব্রোঞ্জপদক অর্জন করে।

এছাড়াও গুণমান ব্যবস্থাপনা, পেশাগত স্বাস্থ্য এবং নিরাপত্তা মানদণ্ডের জন্য গ্রুপের সমস্ত বিদ্যুৎকেন্দ্র আইএসও সার্টিফিকেট লাভ করেছে। আমাদের বিদ্যুৎ বিভাগের সকল নির্বাহী ও কর্মচারীদের জানাই হৃদয়গ্রাহী অভিনন্দন। একইভাবে, গ্লোবাল ওইএমএস এর সাথে ২৪টি প্রধান সংস্কার কাজ কোনরকম সমস্যা ছাড়াই সফলভাবে সম্পন্ন করার জন্য আমাদের ইউইপিএসএলকে অভিনন্দন জানাই।

আপনারা জেনে আনন্দিত হবেন যে, বাংলাদেশ সরকার আনোয়ারায় ৩০০ মেগাওয়াট এইচএফও ফায়ারড আইপিপি প্রকল্পটি ইউনাইটেড এন্টারপ্রাইজেস কোঃ লিঃ (ইউইসিএল) কে প্রদান করেছে, যা আমাদের মোট বিদ্যুৎ উৎপাদন ক্ষমতাকে ১০০০ মেগাওয়াট পর্যন্ত বর্ধিত করবে। আশা করি, এ বছরের শেষে আমরা এই প্রকল্পটি শুরু করতে সক্ষম হবো এবং ২০১৮ সালের মাঝামাঝি বাণিজ্যিক কার্যক্রম শুরু করবো ইনশা আল্লাহ।

ইউনাইটেড পাওয়ার জেনারেশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোঃ লিঃ (ইউপিজিডি) ২০১৫ সালের এপ্রিল থেকে ঢাকা ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে সফলভাবে লেনদেন শুরু করেছে এবং আল্লাহর রহমতে ভাল করছে। আমাদের ২টি বিদ্যুৎকেন্দ্র-ইউনাইটেড আশুগঞ্জ পাওয়ার লিঃ এবং শাহজাহানউল্লাহ পাওয়ার জেনারেশন কোম্পানি লিঃ আয়ত্তের মাধ্যমে ইউপিজিডি তার আওতা বৃদ্ধি করেছে যা একত্রিতকরণের মাধ্যমে ১ নভেম্বর ২০১৫ থেকে কার্যকর হয়েছে।

ভূমি এবং নির্মাণ খাতে আমরা দুটি বৃহৎ প্রকল্পে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি অর্জন করেছি: ইপকো, হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর সংলগ্ন আমাদের অংশ-মালিকানাধীন 'এয়ারপোর্ট হোটেল অ্যান্ড রিটেইল প্রোজেক্ট' এবং 'ইউনাইটেড সিটি', সাঁতারকুলে অবস্থিত একটি স্বপ্নিল আবাসিক ভবন। এই প্রকল্পের প্রধান উপাদানসমূহের মূল নির্মাণ কাজ প্রায় সম্পন্ন। আশা করি, ঢাকা দেখতে পাবে বিশ্বব্যাপী প্রসিদ্ধ হোটেল চেইনগুলো আমাদের প্রকল্পের সাথে যুক্ত হয়ে তাদের হোটেল ব্যবসায়ের পাশাপাশি ব্যবসায়িক ভ্রমণকারী, পর্যটক এবং স্থানীয়দের জন্য এর আইকনিক শপিং এন্ড এন্টারটেইনমেন্ট কমপ্লেক্স পরিচালনা করছে। এই প্রকল্পগুলো ২০১৭ সালের শেষ নাগাদ ব্যবসায় পরিচালনায় যুক্ত হবে ইনশা আল্লাহ।

নতুন ব্যবসায় উদ্যোগে, ২০১৫ সালে আমরা বাংলাদেশে পেট্রোনাস ব্র্যান্ডেড তেল এবং পণ্য উৎপাদনের লক্ষ্যে আধুনিক লুব্রিকেটিং তেল মিশ্রিত সুবিধাযুক্ত 'ইউনাইটেড লুব অয়েল লিমিটেড' (ইউএলওএল) অন্তর্ভুক্ত করেছি। প্ল্যান্টটি ইউনাইটেড গ্রুপের বিদ্যমান প্রাঙ্গণ মংলা বন্দর শিল্প এলাকা, খুলনায় অবস্থান করবে। সুলভ এবং সেরা প্রযুক্তির উপর ভিত্তি করে এটি প্রতি বছর প্রাথমিক ক্ষমতা অনুযায়ী ১২,০০০ মেট্রিক টন উৎপাদন শুরু করবে। প্ল্যান্টটির নির্মাণকাজ ইতোমধ্যে শুরু হয়েছে এবং নির্ধারিত সময় ২০১৭ সালের মাঝামাঝি তারিখে কাজটি সমাপ্তির লক্ষ্যে পেট্রোনাসের কারিগরি দলের সমন্বয়ে ইপিসি দলের কঠোর তত্ত্বাবধানে এর অগ্রগতি সঠিক পথেই আছে ইনশা আল্লাহ।

প্রশাসনিক ক্ষেত্রে, ৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৫ তারিখে আমাদের কর্পোরেট অফিস ৫১ নং সড়ক থেকে ৯০ নং সড়কের গুলশান সেন্টার পয়েন্টে স্থানান্তরিত করেছি। আমি মনে করি, এই নতুন সেটআপটি সমসাময়িক অফিস ব্যবস্থাপনা পদ্ধতির মধ্যে দেশের সবচেয়ে সম্ভ্রান্ত ও আধুনিক অফিসগুলোর একটি। আমাদের নির্বাহী ও স্টাফগণ কোম্পানীর স্বার্থে তাদের সেরাটা দিতে পারেন এই প্রত্যাশায় আমরা অফিসে সম্ভাব্য সেরা কর্ম পরিবেশ তৈরি করতে চেষ্টা করেছি।

কর্মচারী কল্যাণ বিষয়ে, প্রভিডেন্ট ফান্ড, গ্র্যাচুইটি এবং বীমা ছাড়াও আমাদের বেশ কিছু পরিকল্পনা (স্কিম) চলমান আছে যেমন অনুদান, সুদবিহীন ঋণ এবং পারিবারিক চিকিৎসা বীমা। গত পঞ্জিকাবর্ষে, এই বিষয়ে আমরা আমাদের কর্মচারীদের পারিবারিক সমস্যা সমাধানের জন্য প্রায় ২ কোটিরও বেশি টাকা প্রদান করেছিলাম। এ বছর, আমরা মেধাবী শিশুদের জন্য বৃত্তি ব্যবস্থার প্রবর্তন করেছি এবং আমাদের যাকাতযোগ্য কর্মীদের আর্থিক সমস্যার উন্নয়ন সাধনে একটি যাকাত ফান্ড খুলেছি।

জনকল্যাণ ক্ষেত্রে, আমাদের সামাজিক কল্যাণ সংস্থা 'ইউনাইটেড ট্রাস্ট', "পল্লী শিক্ষা", "স্বাস্থ্য এবং স্যানিটেশন", "দারিদ্র্য বিমোচন" এবং "নাগরিক সেবা" এর ক্ষেত্রে সামাজিক উন্নয়ন কার্যক্রমকে ব্যাপকভাবে বৃদ্ধি করেছে। এ বছর, তারা 'দারিদ্র্য বিমোচন' এবং 'স্বাস্থ্য ও স্যানিটেশন' খাত আরও গতিশীল ও প্রয়োজন-ভিত্তিক করার জন্যে তাদের কাজ পুনঃনির্মাণ ও সম্প্রসারণ করছে। মিশন এবং ভিশন সক্রিয়ভাবে অর্জন করতে ট্রাস্টের বাজেট এ বছর প্রায় দ্বিগুণ হয়েছে। তারা দরিদ্র জনগোষ্ঠীর জন্য যাকাত ভিত্তিক পরিকল্পনা (স্কিম) স্থাপন করছে এবং বিভিন্ন প্রকল্পের মাধ্যমে শহরাঞ্চলের বস্তি এলাকাগুলোতে তাদের কর্মকাণ্ড বিস্তৃত করছে যেমন লিঙ্গবৈষম্যের শিকার নারীদের পুনর্বাসন, পথশিশু এবং ভিক্ষুকদের নির্মূল করা। ইউনাইটেড ট্রাস্টের প্রচেষ্টা আরো গতিশীল ও ফলপ্রসূ করতে তাদের যতটা পৃষ্ঠপোষকতা করা প্রয়োজন আমরা তা করার পরিকল্পনা করেছি।

পরিশেষে, ম্যানেজমেন্টের পক্ষ থেকে, আমি আপনাদের সবার সুস্বাস্থ্য, সুখী ও সমৃদ্ধ দিন কামনা করি। আল্লাহ আমাদের সকলের উপর তাঁর রহমত ও বরকত দান করুন। আমীন।